কীভাবে নামাজের মধুরতা লাভ করা যায়?

New কীভাবে নামাজের মধুরতা লাভ করা যায়?

নামাজের মধুরতা

নামাজ হলো সর্বোত্তম ইবাদত। যখন কেউ নামাজ শেষ করার উদ্দেশ্যে সালাম ফেরায় (তাসলিম) তখন সে নিশ্চিতভাবেই প্রশান্তি লাভ করে। ইবনে আল জাওযী (রাহিমাহুল্লাহ) নামাজের ব্যাপারে বলতে গিয়ে চমৎকার একটি উক্তি করেছেন:

“নিশ্চয়ই আমরা এমন এক উদ্যানে অবস্থান করি যেথায় আমাদের আহার্য হলো খুশু আর পানীয় হলো অশ্রু”

যে ব্যক্তি নামাজে পূর্ণভাবে আল্লাহর ইবাদাতে নিমগ্ন থাকে সে ব্যাপারে ইবনে তাইমিয়্যাহ (রাহিমাহুল্লাহ) বলেন: 
“এমন নিমগ্ন ইবাদাতে তাঁর রুহ প্রকৃতই আল্লাহর (সাথে বন্ধনের গভীরে থাকায় যেন সেটা) আরশের চারিপাশে তাওয়াফ করতে থাকে।“

কেউ প্রশ্ন তুলতে পারে যে ইনারা তো অনেক আগের যুগের মানুষ। এখন আর কেউ নামাজে এরকম প্রশান্তি ও স্বাদ অনুভব করে না। কিন্তু এ কথা মোটেও চিরন্তন সত্য নয়; এখনও যে কেউ সেই নামাজের সুমধুর প্রশান্তির সন্ধান পেতে পারে। আর এ জন্য আমাদের দরকার নামাজের গুরুত্ব অনুধাবন করা এবং খুশু অর্জনের রহস্য উন্মোচন করা। আর এর মাধ্যমেই নামাজ হতে পারে আমাদের সবকিছুর সমাধান; সব দুঃখ, কষ্ট, গ্লানি ও হতাশার ঔষধ; এমন উপাদেয় যার মাধ্যমে আমরা পরম তৃপ্তি ও প্রশান্তি লাভ করি; এমন কিছু আমরা চাই তা যেন কখনও শেষ না হয়।

এবার আমরা দেখবো কীভাবে নামাজের এই মধুরতা ও প্রশান্তি অর্জনের রহস্য উন্মোচন করা যায় এবং আল্লাহর সাথে কথোপকথনের মাধ্যমে এটি ভালোভাবে অর্জন করা সম্ভব।

১। প্রথমত আমাদের যে কাজটি করতে হবে সেটা হলো খুশু সম্পর্কে আমাদের ধারণা পরিবর্তন করতে হবে। খুশু মানে শুধু এই না যে আপনি খুবই কষ্ট করে এমন মনোনিবেশ করেছেন যে আপনাকে আর ভিন্নমুখি করা সম্ভবই নয়। একাগ্র হৃদয় বা মন হলো খুশুর প্রথম স্তর। অনেকটা এরকম যে আপনি কেবল একটি বাড়ির দরজা খুলেছেন, এখনো পুরো বাড়িটাই দেখার বাকি আছে। খুশুর গভীরতা এরকমই অসীম।

অনেকেই মনে করে যে মনকে পূর্ণরূপে নিবিষ্ট করা বা নিজের চিন্তা-চেতনাকে নির্দিষ্টভাবে কেন্দ্রীভূত করা খুবই কঠিন কাজ। এই ধারণাকে নির্মূল করতে নামাজে আসার সময়ই আমাদের এ ব্যাপারে বিশুদ্ধ ও সঠিক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে আসতে হবে। ধরা যাক আমাদের প্রতি ওয়াক্ত নামাজে ১০ মিনিট করে সময় লাগে। মানে দিনে ব্যয় হয় মাত্র ৫০ মিনিট; এক ঘন্টাও না। বাকি তেইশ ঘন্টা কাটে দুনিয়াবি বিষয়াদির জন্য। এই পঞ্চাশটা মিনিটও কি আমরা এককভাবে নিবিষ্ট মনে, অন্য চিন্তা ছাড়া, কেবল আল্লাহ তা’য়ালার জন্য দিতে পারি না? এইটুকু সময়ের মাঝেও কি আমরা দুনিয়ার জিনিস নিয়ে ভাববো?

নামাজ শুরুর আগে এই কথাগুলো এমনভাবে মনে গেঁথে নিতে হবে যাতে আমাদের নফস আমাদের এই বলে ধোঁকা দিতে না পারে যে “নামাজে মনোযোগ দেয়া খুবই কঠিন” - কারণ এটা খুবই সম্ভব ও সকলের সাধ্যের মধ্যকার একটি কাজ। আমাদের মনে রাখা উচিত যে আল্লাহর সামনে দাঁড়ানোর আনন্দ ও মিষ্টতা দুনিয়ার যেকোনো প্রলোভনের চাইতে অনেক অনেক আকাঙ্ক্ষিত, বেশি সুখের। শুধু একবার তা অনুভব করলে আর কিছুতেই মন উদাস হবে না।


কীভাবে নামাজের মধুরতা লাভ করা যায়?

মূলঃ মিশারী আল-খারাজ

Write a review

Note: HTML is not translated!
    Bad           Good

1 Product(s) Sold
  • ৳300.00
  • Ex Tax: ৳300.00

Tags: কীভাবে নামাজের মধুরতা লাভ করা যায়?